বিএসএমএমইউতেই খালেদা জিয়াকে সব ধরনের চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব: পরিচালক

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ)-তেই খালেদা জিয়াকে সব ধরনের চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব বলে জানিয়েছেন হাসপাতালটির পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল্লাহ আল হারুন। তিনি বলেন, ‘বিএসএমএমইউতেই খালেদা জিয়াকে সব ধরনের চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব। আর উনার যে রোগ (আর্থ্রাইটিস), সেই রোগের চিকিৎসার জন্য আলাদা একটা ডিপার্টমেন্টই আছে এখানে’।

মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর) দুপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

এসময় বিএসএমএমইউ পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল্লাহ আল হারুন বলেন, ‘আজ সকালে খালেদা জিয়ার অবস্থা সম্পর্কে খোঁজ-খবর নিয়েছি। উনি (খালেদা জিয়ার) যেহেতু হাসপাতালে ভর্তি আছেন, তাই তার চিকিৎসার জন্য গঠিত মেডিক্যাল বোর্ডের প্রধান ড. এম এ জলিল ও ড. সৈয়দ আতিকুল হক তার ব্যাপারে সাবজেল থেকে (খালেদা জিয়া হাসপাতালের যে কেবিনে আছেন, ওই এলাকাটাকে সাবজেল ঘোষণা করা হয়েছে) সব আপডেট তথ্য সংগ্রহ করেছেন। খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল আছে। ৬ অক্টোবর হাসপাতালে ভর্তির পর এখন পর্যন্ত তার অবস্থার কোনও অবনতি হয়নি।’

খালেদা জিয়া সুস্থ হবেন কিনা জানতে চাইলে পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল্লাহ আল হারুন সাংবাদিকদের বলেন, ‘যদি ‍উনাকে উন্নত চিকিৎসা দেওয়া যায়, তাহলে উনি অনেকটাই সুস্থ হয়ে উঠবেন।’ বিএসএমএমইউতেই খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব বলেও জানান তিনি

আগে থেকেই খালেদা জিয়ার ডায়াবেটিস ছিল কিনা সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, ‘গত বিশ বছর ধরে তার ডায়াবেটিস আছে।’

এদিকে খালেদা জিয়ার অসুস্থতার ব্যাপারে সব রোগ সংক্রান্ত পুঙ্খানুপুঙ্খ তথ্য মিডিয়ার ফলাও করে ব্রিফ করা ঠিক হচ্ছে কিনা জানতে চাইলে বিএসএমএমইউ হাসপাতালের একজন সহকারী পরিচালক বলেন, ‘খালেদা জিয়ার চিকিৎসার ব্যাপারে মিডিয়া ব্রিফ করাটা রুটিন কাজের মধ্যেই পড়ে। যারা ব্রিফ করছেন, তারা সবাই হয়তো মিডিয়াতে ব্রিফ করতে অভ্যস্ত নন। যদি কখনও তেমন কিছু বলা হয়ে থাকে, তাহলে মিডিয়ার উচিত সেটা স্কিপ করা।’

প্রসঙ্গত, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আদালতের নির্দেশে শনিবার (৬ অক্টোবর) বিকালে নাজিমুদ্দিন রোডেন পুরাতন কারাগার থেকে এনে বিএসএমএমইউ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তিনি সেখানে ৬১২ নম্বর কেবিনে চিকিৎসাধীন আছেন।

Related posts

Leave a Comment