পাঁচ গ্রামের বেশি ইয়াবা বহন করলে মৃত্যুদণ্ড : মন্ত্রিসভায় খসড়া আইন অনুমোদন

মাদকের পৃষ্ঠপোষকতা, পাঁচ গ্রামের বেশি ইয়াবা, ২৫ গ্রামের বেশি হেরোইন বা কোকেন উৎপাদন, পরিবহন ও বিপণনের পাশাপাশি সেবন করলে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে নতুন আইনের প্রস্তাব অনুমোদন করেছে সরকার। সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে তেজগাঁওয়ে তার কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে ‘মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮’-এর খসড়া নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠকের পর সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম প্রেস বিফ্রিংয়ে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, সম্প্রতি সারাদেশে ব্যাপকহারে ছড়িয়ে পড়া ইয়াবার বিষয়ে আইনে কঠোর বিধান রাখা হয়েছে। ইয়াবা, সিসাবার ও ডোপ টেস্টসহ সব ধরনের মাদককে নতুন আইনে যুক্ত করা হয়েছে। এমন কোনো বিষয় নেই যা এ আইন কভার করবে না।

সচিব বলেন, পাঁচ গ্রামের বেশি ইয়াবা বহন, বিক্রি ও চোরাচালানে যুক্ত থাকলে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের প্রস্তাব করা হয়েছে। এ অপরাধে সর্বনিম্ন সাজার প্রস্তাব করা হয়েছে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। পাঁচ গ্রামের কম বহনে থাকছে সর্বোচ্চ ১৫ বছর ও সর্বনিম্ন ৫ বছর কারাদণ্ড। একই সঙ্গে মাদকের পৃষ্ঠপোষক, মদদদাতা, অর্থ জোগানদাতা ও প্ররোচনাকারীদেরও সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড রাখা হয়েছে। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণের আগের আইনটি ১৯৯০ সালে করা। ২৮ বছরের পুরনো আইনের সঙ্গে আন্তর্জাতিক মাদকবিরোধী সব সাম্প্রতিক আইনের সমন্বয়ে নতুন খসড়া করা হয়েছে। এ আইনে বিশ্বের সব মাদক উপাদান যুক্ত করা হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, যে কোনো পানীয়তে যদি পাঁচ শতাংশ বা এর বেশি পরিমাণ অ্যালকোহল থাকে তাহলে সেটি বিয়ার হিসেবে গণ্য হবে। এ জাতীয় পণ্য বিক্রির জন্য সংশ্নিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে লাইসেন্স নিতে হবে। লাইসেন্সের কোনো শর্ত ভঙ্গ করলে এক লাখ টাকা জরিমানা হবে।

Related posts

Leave a Comment