সাফল্যের আরেকটি পালক ওসমানী হাসপাতালের!

সিলেটে চিকিৎসাসেবায় কোটি মানুষের ভরসাস্থল এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল। প্রতিদিন হাজারো মানুষ সিলেট বিভাগের বৃহত্তর এই হাসপাতালটিতে চিকিৎসাসেবা নেন। অতীতে বিভিন্ন সময় এই হাসপাতালটি নানা সাফল্য অর্জন করেছে। এবার আরেকটি সাফল্যে নিজেদের নাম জড়ালো ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল। প্রথমবারের মতো এই হাসপাতালে কর্তিত অঙ্গসংযোজন করা হয়েছে। সহজ ভাষায়, শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া অঙ্গ পুনরায় শরীরে জোড়া দেয়া হয়েছে। জানা গেছে, ওসমানী হাসপাতালের প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মো. আব্দুল মান্নানের নেতৃত্বে একটি টিম অঙ্গসংযোজনের কাজ করেছে। গত ৯ সেপ্টেম্বর সফলভাবে এক যুবকের কর্তিত বৃদ্ধাঙ্গুলি পুনঃসংযোজন…

ছাগল বিত্তান্ত

ডা. গুলজার হোসাইন উজ্জল : মফিজ গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের মালিক মফিজুর রহমান একটা হাসপাতাল দিয়েছেন। প্রচুর নামকরা ডিগ্রীধারী ডাক্তারদের উচ্চ বেতন দিয়ে কন্সাল্ট্যান্ট হিসেবে রেখেছেন। উন্নত দামী দামী যন্ত্রপাতি এনেছেন। তিনি মালিক হিসেবেও ভাল। কর্মচারীদের নিয়মিত বেতন দেন, ঈদে চান্দে ফুল বোনাস দেন। দিলখোলা মানুষ। কারো কোন বিপদ হলে তিনি এগিয়ে আসেন হাত খুলে। গতবছর তার অফিসের এক কর্মচারীর ক্যান্সার হয়েছিল। তিনি চিকিৎসার পুরো খরচ বহন করেছেন। কর্মচারীরা তাকে অনেক ভালবাসেন। মফিজুর রহমান এককালে বিড়ি ব্যবসায়ী ছিলেন। এখন তিনি গ্রুপ অব কোম্পানীর মালিক। হাসপাতাল দিয়েছেন। তার হাসপাতাল দেশের সেরা হাস্পাতালের…

‘সুপার স্পেশালাইজড’ হাসপাতালের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) অধীনে প্রতিষ্ঠিত সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতাল প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে এ প্রকল্পের উদ্বোধন করেন তিনি। বিশ্ববিদ্যালয়ের কেবিন ব্লকের পেছনে নিজস্ব ৩ দশমিক ৮২ একর জমিতে দেশের প্রথম এ সেন্টার বেইজড সুপার স্পেশালাইজড হাসপাতাল নির্মাণ হচ্ছে। অত্যাধুনিক এ হাসপাতালে মোট ১১টি সেন্টার থাকবে। ২০২১ সালে ১৩তলা বিশিষ্ট এ হাসপাতালের উদ্বোধন হওয়ার কথা রয়েছে। যেখানে এক ছাদের নিচেই সবধরনের স্বাস্থ্য সেবা মিলবে। সেগুলো হলো- কার্ডিও ও সেরিব্রো ভাসকুলার সেন্টার, স্পেশালাইজড অটিজম সেন্টারসহ ম্যাটারনাল অ্যান্ড চাইল্ড হেলথ কেয়ার সেন্টার, ইমার্জেন্সি মেডিকেল…

চমেকের হাড় পাঠাগার খরচ বাঁচাবে মেডিকেল শিক্ষার্থীদের

সরকারি মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি হওয়া বেশির ভাগ শিক্ষার্থীই মধ্যবিত্ত পরিবারের। বিভিন্ন দামি বই কেনার পর শিক্ষার্থীদের বড় বোঝা হয়ে দাঁড়ায় অন্যতম শিক্ষা উপকরণ ‘মানব হাড়’ (বোন) সংগ্রহ করা। ২০৬টির এক সেট হাড়ের দাম বর্তমানে ৩০ হাজার থেকে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত পড়ে। চলতি বছর জানুয়ারিতে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজে (চমেক) ক্লাস শুরু করে আগামী বছর জুলাইতে প্রথম চূড়ান্ত পরীক্ষা দেবে প্রথম ও দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা। কিন্তু অর্থাভাবে এখনো তাদের অনেকে হাড়ের সেট কিনতে পারেনি। এককভাবে কিনেছে এ রকম শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৬০ শতাংশ বলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানায়। অনেকে যৌথভাবে কিনে পড়ছে। চলতি…

কক্সবাজারে ৬০ মাদক কারবারির বাড়িতে যৌথ বাহিনীর অভিযান

কক্সবাজার সদর, রামু ও টেকনাফ উপজেলায় ৬০ শীর্ষ মাদক কারবারির বাড়িতে অভিযান চালিয়েছে জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, গোয়েন্দা পুলিশ ও থানা পুলিশের সমন্বয়ে গঠিত যৌথ বাহিনী। গত দু’দিনের এ অভিযানে তল্লাশিকালে কয়েকটি বাড়ি থেকে ইয়াবা, দেশি অস্ত্র ও টাকা উদ্ধারের দাবি করেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। অভিযান চালানো বাড়িগুলোর মধ্যে ছয়জন স্থানীয় জনপ্রতিনিধির বাড়িও রয়েছে। জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর জানিয়েছে, ইয়াবা ব্যবসায়ীদের বাড়িগুলো দেখতে অনেকটা রাজপ্রাসাদের মতো। বুধবার দুপুরে অভিযানের বিষয়টি নিশ্চিত করে কক্সবাজার মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক সোমেন মণ্ডল বলেন, গত রবি ও সোমবার মাদকবিরোধী অভিযানে জেলার সদর, রামু ও…

জন্মনিয়ন্ত্রণ নিয়ে এ কী বললেন তাঞ্জানিয়ার প্রেসিডেন্ট!

জন্মনিয়ন্ত্রণ সামগ্রী বিজ্ঞানের একটি অন্যতম আশির্বাদ। কারণ জন্মনিয়ন্ত্রণ না থাকলে বিশ্বের জনসংখ্যা এত বেড়ে যেত যে, বিদ্যমান উৎপাদিত খাদ্য দিয়ে এত মানুষের চাহিদা পূরণ করা অসম্ভব ছিল। তবে এই জন্মনিয়ন্ত্রণ নিয়েই বিরূপ মন্তব্য করলেন তাঞ্জানিয়ার প্রেসিডেন্ট জন ম্যাগুফুলি। এমনকি তিনি জন্মনিয়ন্ত্রণ গ্রহণকারী নারীরা আলসে বলেও মন্তব্য করেন। সম্প্রতি তাঞ্জানিয়ার প্রেসিডেন্ট এক বক্তব্যে দেশটির নারীদের সরাসরি বলে বসলেন জন্মনিয়ন্ত্রণ সামগ্রী ব্যবহার না করতে। রোববার এক বক্তব্যে তাঞ্জানিয়ার প্র্রেসিডেন্ট বলেন, ‘নারীরা এখন জন্মনিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি বাদ দিতে পারেন।’ তিনি বলেন, ‘যারা পরিবার পরিকল্পনা গ্রহণ করেন তারা অলস… তারা তাদের সন্তানকে জন্ম দিতে ভয়…

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে ৫টি আবেদন

ডা. কামরুল হাসান সোহেল : (১) আন্তঃ ক্যাডার বৈষম্য দূর করে বিসিএস (স্বাস্থ্য) ক্যাডারকে অন্যান্য ক্যাডারের সমমান করার উদ্যোগ নিন। স্বাস্থ্য ক্যাডারের শীর্ষ পদ কে গ্রেড-১ করা সহ স্বাস্থ্য ক্যাডারের গ্রেড বিন্যাস আধুনিক ও যুগোপযোগী করার উদ্যোগ নিন। (২) চিকিৎসকদের জন্য স্বতন্ত্র বেতন,কাঠামো গঠনের উদ্যোগ নিন। চিকিৎসকদের কর্মঘন্টা অন্যান্য পেশার মতো নয়, তাদের ২৪/৭ সেবা দিতে হয়, একমাত্র চিকিৎসকদেরই ইউনিয়ন পর্যায়ে পদায়ন করা হয়, দুর্গম এলাকায় পোস্টিং দেয়া হয়। চিকিৎসকদের কর্মঘন্টা যেহেতু বেশি এবং দুর্গম অঞ্চলে গিয়ে সেবা দিতে হয়,২৪/৭ সেবা দিতে হয় তাহলে তাদের বেতন, ভাতা ও অন্যান্য সুযোগ…